সাত সকালে ভূমিকম্পে কাঁপল আসাম ও উত্তরবঙ্গের বেশ কয়েকটি জেলা ।

0
5

বুধবার সকালে ভূমিকম্পে কেঁপে উঠল আসাম ও উত্তরবঙ্গের বেশ কিছু জেলা । কলকাতাতেও কম্পন অনুভব করা গেছে বলে জানা গেছে । এদিন সকাল ৭টা ৫৪মিনিট নাগাদ এই কম্পন অনুভূত হয় । কম্পনের জেরে আতঙ্কে রাস্তায় নেমে আসেন মানুষজন । জানা গেছে দার্জিলিং, জলপাইগুড়ি, আলিপুরদুয়ার, কোচবিহার, শিলিগুড়ি, মালদা, মুর্শিদাবাদ উত্তরবঙ্গের এই সমস্ত জেলায় কম্পন অনুভূত হয়েছে । প্রাথমিক ভাবে জানা গেছে, এদিন দুটি ভূমিকম্প হয়েছে । কয়েক সেকেন্ডের এই ভূমিকম্পের উৎপত্তিস্থল আসাম বলে জানা গেছে । আরও জানা গেছে, এই কম্পনের উপকেন্দ্র গুয়াহাটির তেজপুর থেকে ১৬০ কিমি উত্তর পূর্বে শোণিতপুরে ভূপৃষ্ঠের ২১ দশমিক ৪ কিলোমিটার নীচে । এদিন রিখটার স্কেলে এই কম্পনের মাত্রা ছিল ৬.৭ । এদিন কলকাতায় কম্পনের স্থায়িত্ব ছিল মাত্র ২৭ সেকেন্ড । আসামে বেশ কয়েকটি বাড়িতে ফাটল দেখা দিয়েছে বলেও জানা গেছে । তবে উত্তরবঙ্গে এখনও পর্যন্ত ক্ষয়ক্ষতির কোনও খবর পাওয়া যায় নি । উত্তরবঙ্গে সাম্প্রতিক অতীতে বেশ কয়েকটি ভূমিকম্প হওয়ায় এলাকার মানুষের মনে একটা আতঙ্ক তৈরি হয়েছে । এদিনের ভূমিকম্প প্রসঙ্গে আবহাওয়াবিদ সুজীব কর জানান, ইয়োসিন হিঞ্জরেখা বরাবর ভূমিকম্প হওয়ায় সেই কম্পনের প্রভাব পড়ে কলকাতাতেও । তার মতে, গরমের দাবদাহে ভূপৃষ্ঠের তাপমাত্রা বেড়েছে উত্তর ভারতে । এদিকে উত্তর পূর্বে বৃষ্টিপাত হওয়ায় চ্যুতিরেখা বরাবর উষ্ণতার ব্যাপক তারতম্য হওয়াতেই এই ভূমিকম্প বলেও জানান তিনি । আর এই হিঞ্জরেখার উপরেই কলকাতা অবস্থিত হওয়ায় আগামীদিনেও হিঞ্জরেখা বরাবর কম্পনের আশঙ্কা রয়েছে বলেও তিনি এদিন জানান । এদিনের ভূমিকম্প প্রসঙ্গে আসামের মুখ্যমন্ত্রী সর্বানন্দ সোনোওয়াল বলেছেন, এখানে যে শক্তিশালী ভূমিকম্প হয়েছে তার জন্য তিনি সবাইকে সতর্ক থাকার আর্জি জানান । পাশাপাশি রাজ্যের সমস্ত জেলা থেকে তথ্য সংগ্রহ করা হচ্ছে বলেও তিনি জানান । অন্যদিকে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিও ভূমিকম্প নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করে বলেন, আসামের মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে তার কথা হয়েছে এবং তিনি কেন্দ্রের তরফে সব ধরনের সাহায্যের আশ্বাস দিয়েছেন ।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে