রাজনৈতিক হিংসার শিকার হল একই গ্রামের 60 টি পরিবার। নিজের জেলা ছেড়ে ভিটেমাটি ছেড়ে প্রাণে বেঁচে কোনরকমে আশ্রয় নিল নদীয়ার শান্তিপুর ব্লকের গয়েশপুর এলাকায়।

0
18

বিধানসভা নির্বাচনের ফল প্রকাশিত হওয়ার পর থেকেই রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তে রাজনৈতিক হিংসা অব্যাহত। এবার ভোটের ফলাফল ঘোষণা হওয়ার পরেই রাজনৈতিক হিংসার শিকার হল একই গ্রামের 60 টি পরিবার। রাতের অন্ধকারে নিজের জেলা ছেড়ে ভিটেমাটি ছেড়ে প্রাণে বেঁচে কোনরকমে আশ্রয় নিল নদীয়ার শান্তিপুর ব্লকের গয়েশপুর এলাকায়। অভিযোগ রাজ্যের নির্বাচনী ফলাফলের ঘোষণা হওয়ার পরপরই বর্ধমান জেলার কালনা থানার অন্তর্গত উদায়গঞ্জ গ্রামে রাজনৈতিক হিংসা শিকার হয় প্রায় 50 থেকে 60 টি পরিবার। অভিযোগ তৃণমূল আশ্রিত দুষ্কৃতীরা খেলা হবে ভয়ঙ্কর খেলা হবে স্লোগানের সাথে হামলা চালায় ওই গ্রামে। একের পর এক বিজেপি কর্মীর বাড়ি ভাঙচুর করা হয় বাড়িতে ঢুকে বিজেপি কর্মীদের পরিবারের একাধিক পুরুষ ও মহিলাদের মারধর করা হয়। এই ঘটনায় পরিবারের শিশুদের কেউ মারধর করে তৃণমূল আশ্রিত দুষ্কৃতীরা তাই প্রাণে বাঁচতে রাতারাতি ঐ 60 টি পরিবার আশ্রয় নেয় শান্তিপুর ব্লকের গয়েশপুরে। এ বিষয়ে অভিযোগের সুরে গ্রামবাসীরা জানান, আমরা এতটাই আতঙ্কের মধ্যে রয়েছি পরিবার নিয়ে কি করে গ্রামে ফিরব তা এখন বুঝতে পারছি না। একাধিকবার বর্ধমান জেলার কালনা থানা কে ফোন করলেও সেখান থেকেও কোনো সুরাহা মিলছে না। তৃণমূলের লোকজন যেভাবে হুমকি দিচ্ছে গ্রামে গিয়ে এখন বসবাস করা টাই দায় হয়ে ঠেকেছে গ্রামে ঢুকলেই নাকি প্রাণে মেরে দেবে বলে হুমকি দিচ্ছে। অভিযোগ ভোটের দিন সকাল থেকেই উদায়গঞ্জ গ্রামের আনাচে-কানাচে তাজা বোমাসহ আগ্নেয়াস্ত্র নিয়ে ঘোরাফেরা করতে থাকে তৃণমূলের লোকজন আমরা বিজেপি করি বলে ভোটের গণনা শেষ হতেই আমাদের উপরে হামলা চালায় কারণ আমরা বিজেপিকে সমর্থন করি। আমাদের ছোট ছোট বাচ্চা নিয়ে ঘর ছাড়া হয়েছি কতদিন এভাবে পালিয়ে পালিয়ে থাকবো প্রশাসন যেন এর সঠিক বিচার করে না হলে গ্রামে ঢুকলে ওরা আমাদের প্রাণে মেরে ফেলবে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে