বাতিল এ বছরের মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষা, ঘোষণা মুখ্যমন্ত্রীর

0
36

এবছর হচ্ছে না মাধ্যমিক-উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষা। ‘কীভাবে মূল্যায়ন, তা ৭দিনের মধ্যে জানানো হবে’,মাধ্যমিক-উচ্চমাধ্যমিক নিয়ে জানিয়ে দিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।করোনা আবহে বিশেষজ্ঞ কমিটি মাধ্যমিক-উচ্চমাধ্যমিক বাতিলের পরামর্শ দিয়েছে বলে জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। জোড়া পরীক্ষা নিয়ে অভিভাবক, পড়ুয়া ও সাধারণ মানুষের মতামত চেয়েছিল সরকার। মুখ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন, মাধ্যমিক না হওয়ার পক্ষে জনমত পড়েছে ৭৯ শতাংশ। উচ্চমাধ্যমিক না হওয়ার পক্ষে জনমত পড়েছে ৮৩ শতাংশ। তিনি বলেছেন, মতামত জানিয়ে সরকারের কাছে ৩৪ হাজার ইমেল। উল্লেখ্য, আজ দুপুর দুটোর মধ্যে ইমেল মারফৎ মতামত জানতে চেয়েছিল সরকার।মুখ্যমন্ত্রী বলেছেন, পড়ুয়াদের যেন কোনও অসুবিধে না হয়, দেখতে হবে। মাধ্যমিক-উচ্চমাধ্যমিক-সিবিএসইর মূল্যায়ন যেন একসঙ্গে হয়, তা নিশ্চিত করতে হবে। জনমতকে গুরুত্ব দিয়ে পরীক্ষা নিয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে জানালেন মুখ্যমন্ত্রী।গত ২৭ মে মুখ্যমন্ত্রী বলেছিলেন, জুলাইয়ে উচ্চ মাধ্যমিক এবং অগস্টে মাধ্যমিক পরীক্ষা হবে । কিন্তু এরইমধ্যে দশমের পর সিবিএসই-র দ্বাদশ এবং আইএসসি পরীক্ষাও বাতিল হয়ে যায়। পরীক্ষা নিয়ে বিভিন্ন ধরনের মতামতের পরিপ্রেক্ষিতে রাজ্য গঠন করেছিল বিশেষজ্ঞ কমিটি। সেই বিশেষজ্ঞ কমিটি পরীক্ষা না আয়োজন করার পক্ষেই মত দেয়।করোনা আবহে একুশ লক্ষ ছাত্রছাত্রীর পরীক্ষা নেওয়া সম্ভব নয় বলে, তা বাতিলের পক্ষে সায় দিয়েছেন তাঁরা। সূত্রের খবর, কারণ হিসেবে কমিটির তরফে বলা হয়, আসতে পারে করোনার তৃতীয় ঢেউ।তাতে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা আছে শিশুদের।যে বয়সের ছাত্রছাত্রীরা মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষা দেব তাঁদের বয়স ১৫ থেকে ১৮ বছর। রাজ্যে করোনা আবহে মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষা হওয়া উচিত কি না, তা নিয়ে গতকাল আমজনতার মতামত চেয়েছিল সরকার। এই প্রসঙ্গে টুইট করে মুখ্যমন্ত্রী জানিয়েছিলেন,সন্তানদের ভবিষ্যত্‍ আমাদের কাছে সব থেকে বেশি গুরুত্বপূর্ণ। ২০২১ সালের দশম ও দ্বাদশের বোর্ড পরীক্ষার বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়ার জন্য ইতিমধ্যেই আমরা বিশেষজ্ঞ কমিটি গঠন করেছি।পাশাপাশি, অভিভাবক, সাধারণ মানুষ, বিশেষজ্ঞ, সমাজের বিশিষ্ট ব্যক্তি ও ছাত্রছাত্রীদের কাছেও মতামত জানানোর আহ্বান জানাচ্ছি।এরপর মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এদিন বোর্ডের দুই পরীক্ষা বাতিলের ঘোষণা করলেন । মুখ্যমন্ত্রী বলেছেন,  এই সব মত দেখে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। সুপ্রিম কোর্টের মত আছে, এক্সপার্ট কমিটিও বলেছে কোভিডির মধ্যে পরীক্ষা না নিতে। অনেক স্কুলেই সেফ হোম চলছে। আমরা তাই মাধ্যমিক-উচ্চমাধমিক নিচ্ছি না।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে