বাংলায় আসছে বিজেপির সরকার…।’ সাংবাদিক বন্ধুদের সঙ্গে আলাপচারিতায় এমনটাই দাবী খোদ তৃণমূলের পিকের । পালটা পুরো চ্যাট সামনে আনার দাবি প্রশান্ত কিশোরের

0
24

বাংলায় আসছে বিজেপির সরকার…।’ সাংবাদিক বন্ধুদের সঙ্গে আলাপচারিতায় এমনটাই দাবী খোদ তৃণমূলের ভোটকৌশলী পিকের । পালটা পুরো চ্যাট সামনে আনার দাবি প্রশান্ত কিশোরের । পশ্চিমবঙ্গে নির্বাচন চলাকালীনই প্রশান্ত কিশোরের ভাইরাল হওয়া অডিও টেপ ঘিরে চরম উত্তেজনা ৷ বিজেপির আইটি সেলের প্রধান অমিত মালব্য শনিবার একটি অডিও টেপ টুইট করেন। সেখানে প্রশান্তের কণ্ঠে স্পষ্ট বলতে শোনা গিয়েছে, বাংলায় মমতার মতোই জনপ্রিয় মোদি। সমীক্ষায় সংখ্যাগরিষ্ঠ ভোটদাতারাই বলেছেন, বিজেপিই সরকার গড়তে চলেছে বাংলায়। এমনকি, বেশি সংখ্যায় বাম ভোটাররাও বিজেপিকে ভোট দিচ্ছেন। যদিও ওই অডিও টেপের সত্যতা যাচাই করেনি nationalnews24x7 । সাংবাদিক ‘বন্ধু’দের সঙ্গে ‘ক্লাব হাউস রুম’ আলাপচারিতায় তৃণমূলের ভোটকৌশলী পিকেকে বলতে শোনা গিয়েছে, ‘‘মোদি, হিন্দিভাষী ভোটাররা বাংলার ভোটে ফ্যাক্টর এবার । মোদির জনপ্রিয়তা রয়েছে । মতুয়াদের ৭৫ শতাংশ ভোট দেবে বিজেপি-কে । তপশিলি ভোটের বড় অংশও বিজেপি পাবে । ১০-১৫ শতাংশ মানুষ মোদীকে ভগবান ভাবেন । তৃণমূলের বিরুদ্ধে মানুষের রাগ রয়েছে।’’ পিকেকে এও বলতে শোনা গিয়েছে, ‘শুভেন্দু, প্রশান্ত কিশোর কোনও ফ্যাক্টর নয় । হিন্দিভাষী, দলিতরা বিজেপির পাশে রয়েছেন । সরকার তাই বিজেপি-ই গড়ছে…’। বিদ্যুতের গতিতে ভাইরাল হয়েছে ‘ক্লাব হাউজ’ চ্যাটে পিকের কথোপকথনের এই অডিও ক্লিপ । পাশাপাশি সাংবাদিক ‘বন্ধু’দের সঙ্গে ‘ক্লাব হাউস রুম’ আলাপচারিতায় তৃণমূলের ভোটকৌশলীকে আরও বলতে শোনা গিয়েছে, ‘কাটমানি, তোলাবাজি, দুর্নীতি ছাড়াও মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে বিজেপির অন্যতম হাতিয়ার সংখ্যালঘু তোষণ । গত ২০ বছর ধরে চলছে সংখ্যালঘু তোষণ । এই বাংলাতেই দেখুন না । রাজনীতির একটাই অভিমুখ, মুসলিমরা যাকে ভোট দেবে সরকার তার । এটাই বাম, কংগ্রেস বা দিদির রাজনীতির কেন্দ্রবিন্দু হয়ে দাঁড়িয়েছে । মুসলিম ভোট পেতে সকলেই রাজনীতি করেছে । এই প্রথমবার হিন্দুদের মনে হচ্ছে, আমাদের ভোটেরও গুরুত্ব রয়েছে। সমাজব্যবস্থায় গলদ রয়েছে বলব না, তবে এটা একটা ইস্যু তো বটেই । এটাই ব্যবহার করছে বিজেপি । সংখ্যালঘু রাজনীতির অপব্যবহার করেছে এই পার্টিগুলি। তা অস্বীকার করা যায় না।’ অন্যদিকে এপ্রসঙ্গে প্রতিক্রিয়া জানাতে গিয়ে পিকে শনিবার টুইট করেন, ‘আমি খুশি, বিজেপি তাদের নেতার কথার চেয়ে আমার চ্যাটকে বেশি গুরুত্ব দিচ্ছেন । কথার নির্দিষ্ট কিছু অংশ তুলে ধরে উত্তেজিত না হয়ে তাদের পুরো চ্যাটটি প্রকাশ্যে আনা উচিত । আমি আগেও বলেছি, আবার বলছি, বিজেপি পশ্চিমবঙ্গে ১০০ পেরোবে না’।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে