নির্যাতিতা কিশোরীকে দেখতে হাসপাতালে সাংসদ লকেট চ্যাটার্জি ।

0
18

দুদিন নিখোঁজ থাকার পর বৃহস্পতিবার সকালে ভদ্রেশ্বর থানার অন্তর্গত চন্দননগরের বিলকুলি নবগ্রাম এলাকায় বাড়ির কাছেই একটি নর্দমার কালভার্টের নীচ থেকে অচৈতন্য অবস্থায় এক কিশোরীকে উদ্ধার করে স্থানীয়রা । এরপর তাকে চুঁচুড়া ইমামবাড়া সদর হাসপাতালে ভর্তি করে তারা । এই ঘটনার পর থেকেই এলাকায় যথেষ্ট চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে । হাসপাতাল ও পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে উদ্ধার হওয়া ঐ কিশোরীর শরীরের একাধিক জায়গায় আঘাত ও ক্ষতের চিহ্ন রয়েছে । বর্তমানে ঐ কিশোরী চুঁচুড়া ইমামবাড়া সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে । শুক্রবার বেলায় হাসপাতালে কিশোরীর সাথে দেখা করতে যান হুগলির বিজেপি সাংসদ লকেট চ্যাটার্জি । উদ্ধার হওয়া নির্যাতিতা কিশোরী জানায় গত মঙ্গলবার রাতে বাড়ির কাছে দোকান যাওয়ার সময় চন্দননগর খলিসানী এলাকার বাসিন্দা বছর পঁচিশের পার্থ তাকে জোড় করে রাস্তা থেকে তুলে একটি ফাঁকা জায়গায় নিয়ে গিয়ে ধর্ষনের চেষ্টা চালায় । সেই সময় সে বাঁধা দেওয়ায় পার্থ তার ওড়না দিয়ে গলায় ফাঁস লাগিয়ে টান দিলে সে অজ্ঞান হয়ে যায় । বৃহস্পতিবার বিকেলে বিষয়টি জানাজানি হতেই এলাকায় চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে । সেই সময় বিজেপির রাজ্য কমিটির সম্পাদক দীপাঞ্জন গুহ চুঁচুড়া হাসপাতালে গিয়ে নির্যাতিতা কিশোরীর সাথে কথা বলার পরই নির্যাতিতা কিশোরীর পরিবারকে সঙ্গে নিয়ে ভদ্রেশ্বর থানায় গিয়ে অভিযোগ দায়ের করান । এরপর ভদ্রেশ্বর থানার পুলিশ সেই অভিযোগের ভিত্তিতে বৃহস্পতিবার রাতেই এই ঘটনায় মূল অভিযুক্ত পার্থকে গ্রেফতার করে । শুক্রবার বেলায় নির্যাতিতা কিশোরীর সঙ্গে দেখা করার পাশাপাশি তার মায়ের সাথেও কথা বলেন লকেট । পরে সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে লকেট বলেন, এই রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী একজন মহিলা হওয়া সত্বেও এখানে নারীরা সুরক্ষিত নয় । প্রতিদিনই এখানে নারীদের উপর অত্যাচার চলছে ।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে