৪ দফাতেই বিজেপির সেঞ্চুরি পার, আসলে হার নিশ্চিত বুঝতে পেরে দিদির মধ্যে এত তিক্ততা । দিদি কি মিহিদানা পছন্দ করেন না বর্ধমানে কটাক্ষ মোদীর ।

0
20

সোমবার বর্ধমানে নির্বাচনী সভা মঞ্চ থেকে মোদী বলেন, ভগবান মহাবীরের নাম ছিল বর্ধমান । তাঁর পদধূলি পড়েছিল এখানে । এছাড়াও অনেক মহাপুরুষদের জন্ম হয়েছিল এখানে । এদিন মোদী ‘দিদি’কে কটাক্ষ করে বলেন, ‘বর্ধমানের চাল আর মিহিদানা প্রসিদ্ধ । এখানে সব কিছুতেই মিষ্টত্ব আছে । কিন্তু দিদি কি মিহিদানা পছন্দ করেন না ? নাহলে দিদির মধ্যে এত তিক্ততা কেন ? মোদীর আরও দাবী দিদি আসলে নিজের ও তৃণমূলের হার নিশ্চিত বুঝতে পারছেন । তাকে(দিদিকে) রাগ দেখাতে হবে তো, তাহলে মোদির উপর দেখান । তিনি আরও বলেন, দিদি শুনে রাখুন, বাংলার গর্ব, বাংলার পরিচিতিকে অপমান করবেন না । আপনার এই অহংকার বাংলার মানুষ আর সহ্য করবে না । এদিন সভার শুরু থেকেই এবারের নির্বাচনে বিজেপির জেতা নিয়ে চূড়ান্ত ‘কনফিডেন্ট’ মোদী বলেন, ৪ দফা নির্বাচনেই বাংলার জনগণ এত চার, ছাক্কা মেরেছে যে তৃণমূলকে সাফ করে দিয়ে বিজেপি সেঞ্চুরি করে ফেলেছে । মোদী এদিন বলেন, নন্দীগ্রামের মানুষ দিদিকে ক্লিন বোল্ড করে দিয়েছেন । দিদির ইনিংস শেষ বাংলায় । দিদির বড় পরিকল্পনা ফেল করে দিয়েছেন বাংলার জনগণ । তার দাবী বাংলার মানুষ বুদ্ধিমান ও দূরদৃষ্টিসম্পন্ন । দিদি যে দলের অধিনায়কত্ব ভাইপোকে দিতে চেয়েছিলেন সেই খেলা সময় থাকতে ধরে ফেলেছেন তারা । ফলে বাংলার জনগণ দিদির গোটা টিমকে ময়দান ছাড়া করছে । এদিন ইতিহাসের স্মরণ করিয়ে দিয়ে মোদী আরও বলেন, দিদি এটাও জানেন, বাংলায় ক্ষমতা হারানোর পর কংগ্রেস ও বামেরা আর ফেরেনি । দিদি আপনি গেলেও আর ফিরতে পারবেন না । পাশাপাশি তার দাবী দিদি ও তার ঘনিষ্ঠদের কথাবার্তাই বলে দিচ্ছে বড় হারের মুখ দেখতে চলেছে তৃণমূল । অন্যদিকে বাংলায় হিংসার প্রসঙ্গ তুলে এদিন মোদী বলেন, বহু মায়ের কোল খালি করেছে তৃণমূল । নির্বাচনের মাঝে সোমা মজুমদারকে নৃশংসভাবে মারধর করেছিল তৃণমূলের গুন্ডারা । দিদি কোন মায়ের সম্মানের কথা বলছেন । অপরদিকে চোর ধরতে এসে দুষ্কৃতিদের হাতে পুলিশ কর্মীর মৃত্যুর প্রসঙ্গ টেনে বলেন, বিহারের পুনিয়া জেলার এক পুলিশ কর্মী দুদিন আগে নিজের কর্তব্য পালন করতে বাংলায় এসেছিলেন । কিন্তু তাকে পিটিয়ে হত্যা করা হয় । এমনকি নিজের সন্তানের মৃতদেহ দেখার পর মায়েরও মৃত্যু হওয়ায় মা ও ছেলের চিতা একসঙ্গে জ্বালানো হয়েছে । দিদি আপনি এতটা কঠোর, এতটা নির্মম বলেও সুর চড়ান মোদী । পাশাপাশি তিনি বলেন, ২ মে দিদির সরকার যাওয়ার পর প্রধানমন্ত্রী কিষান সম্মান নিধির ১৮ হাজার টাকা করে পেয়ে যাবেন কৃষকরা । এমনকি আর্সেনিকযুক্ত জলের সমস্যার সমাধানে জলপ্রকল্প চালু করে তার দায়িত্ব গ্রামের মহিলাদের দেওয়া হবে বলেও তিনি জানান । অন্যদিকে তিনি আরও বলেন, বাবা আম্বেডকর ও শ্যামাপ্রসাদ মুখোপাধ্যায়ের ইচ্ছায় দামোদর ভ্যালি প্রকল্প চালু হওয়ায় বর্ধমানের মানুষ শিল্পের স্বপ্ন দেখেছিলেন । ধানের বাটি বর্ধমান আজ বঞ্চিত । হিমঘর নেই, মান্ডি নেই ফলে ফসলের দাম পাচ্ছেন না কৃষকরা । এদিন আবারও সিন্ডিকেট প্রসঙ্গ তুলে বলেন, চাষ, হিমঘর থেকে কামাচ্ছে সিন্ডিকেটবাজরা ।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে