রাজ্যে নির্বাচনের ফল ঘোষনার এক সপ্তাহ কাটতেনা কাটতেই শ্রীরামপুর ইন্ডিয়া জুটমিলে তালা ।

0
39

করোনা সংক্রমণে দেশে সর্বনাশারেকর্ডের পাশাপাশি চলছে অন্তহীন মৃত্যুমিছিল । কোথাও সম্পূর্ণ, তো কোথাও আবার আংশিকলকডাউন জারি করা হয়েছে । তার জেরে এম্নিতেই বহু মানুষ ইতিমধ্যেই কর্মহীন হয়েছেন । রাজ্যসরকার ইতিমধ্যেই ৫০ শতাংশ কর্মী নিয়ে কাজ চালানোর নির্দেশ দিয়েছেন । তারপরেও গত রবিবার ২ মে রাজ্যে নির্বাচনের ফল ঘোষনার ৭ দিনের মাথায় সাসপেনশন অফ ওয়ার্কেরনোটিশ ঝুলল হুগলির শ্রীরামপুরের ইন্ডিয়া জুটমিলের টেক্সটাইল শাখায় । এরই প্রতিবাদেএদিন রাস্তা অবরোধ করে প্রায় ঘন্টা দেড়েক বিক্ষোভ দেখায় শ্রমিকরা । পাশাপাশি মিল বন্ধকরা নিয়ে রাজনৈতির তরজা শুরু হয়েছে । এদিন শ্রীরামপুরের ইন্ডিয়া জুটমিলের টেক্সটাইলশাখায় তালা ঝোলায় কর্মহীন হলেন প্রায় পাঁচশোরও বেশি শ্রমিক । শ্রমিকদের দাবি, এদিনসকালে তারা কাজে যোগ দিতে এসে দেখেন টেক্সটাইল শাখায় ঝোলানো রয়েছে সাসপেনশন অফ ওয়ার্কেরনোটিশ । এরপরই তারা ক্ষোভে ফেটে পড়ে পথ অবরোধ করেন । এদিন এবিষয়ে ইন্ডিয়া জুটমিলের পার্সোনাল ম্যানেজার দ্বারকানাথ চৌধুরী জানান,করোনা পরিস্থিতিতে ক্রেতারা মুখ ফিরিয়ে নেওয়ায় মিলে প্রায় ১৫ কোটি টাকার সুতো জমেগেছে । যার ফলে এই পরিস্থিতিতে লোকসান ঠেকাতে উৎপাদন বন্ধ রাখা ছাড়া কোনও উপায় নেই। তাই আপাতত ১৫ দিনের জন্য টেক্সটাইল বিভাগ বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে । কারখানায়মজুত মাল বিক্রি হয়ে গেলে আবার উৎপাদন চালু হবে । এবিষয়ে হুগলি জেলার আইএনটিটিইউসি-রকার্যকারী সভাপতি সন্তোষকুমার সিংহ বলেন, শাসকদলকে বদনাম করতেই ভোটের পর রাজনৈতিক উদ্দেশ্যেমিল বন্ধের সিদ্ধান্ত নিয়েছে কর্তৃপক্ষ । অন্যদিকে বিজেপি রাজ্য কমিটির সদস্য ভাস্করভট্টাচার্য বলেন, তৃণমূলের সঙ্গে আঁতাঁতের জেরেই মিল বন্ধের সিদ্ধান্ত নিয়েছে কর্তৃপক্ষ। মিল বন্ধ নিয়ে রাজনৈতিক তরজা চললেও আখেরে সমস্যায় পড়েছেন কর্মহীন শ্রমিকরা ও তাদেরপরিবার । এদিন শ্রীরামপুর থানার পুলিশ গিয়ে অবরোধরত শ্রমিকদেরআশ্বস্ত করে জানায় আগামী মঙ্গলবার শ্রীরামপুর শ্রম দফতরে ত্রিপাক্ষিক বৈঠকে মিলখোলার বিষয়ে আলোচনা হবে । পুলিশের এই আশ্বাসের পর শ্রমিকরা পথ অবরোধ তুলে নেয় ।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে