‘মানুষকে খেপাতে শুরু করেছেন মমতা’, মমতাকে গৃহবন্দির করার দাবি দিলীপের

0
19

মানুষকে খেপাতে শুরু করেছেন মমতা’, মমতাকে গৃহবন্দির করার দাবি দিলীপের
শুধু দায় চাপিয়েই ক্ষান্ত হন নি বরং শীতলকুচির গুলিকাণ্ডের পর মমতাকেই গৃহবৃন্দি করার দাবি তুললেন বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ । তার দাবী তিনি হেরে যাবেন বুজেই এখন মানুষকে খেপাতে শুরু করেছেন । প্রসঙ্গত শীতলকুচিতে কেন্দ্রীয় বাহিনীর গুলিতে ৪ জনের মৃত্যু নিয়ে তোলপাড় গোটা রাজ্য । কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের ইস্তফার দাবি তুলে সিআইডি-কে ঘটনার তদন্তভার দিয়েছেন মমতা । মমতার দাবী ‘আজকের ঘটনার জন্য দায়ী অমিত শাহ । উনিই ষড়যন্ত্রকারী । কেন্দ্রীয় বাহিনীকে দায়ী করব না । তারা স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর নির্দেশে চলে । নির্বাচন কমিশনের কথায় চললেও ওরা স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের অধীনে। এখানে অঘোষিত ৩৫৬ করে কাজ চলছে।’ অপরদিকে তৃণমূল নেত্রীর বিরুদ্ধে পাল্টা সুর চড়িয়ে এবার নরেন্দ্র মোদির পর মুখ খুললেন দিলীপ ঘোষ । তিনি বলেন, ‘যারা মারা গিয়েছেন, তাদের মৃত্যুর দায় পুরোপুরি মমতা ব্যানার্জির । তিনি মানুষকে আহ্বান জানিয়েছেন, সেন্ট্রাল ফোর্সকে ঘিরতে, ইভিএম আটকাতে’। তার অভিযোগ, ‘সমাজ বিরোধীরা মমতা ব্যানার্জির হয়ে ভোট করতে । তিনি লোককে খেপিয়েছেন । তারা সেন্ট্রাল ফোর্সের উপর হামলা করেছে । গুলি খেয়েছে । আমার মনে হয়, ওর বিরুদ্ধে স্বতঃপ্রণোদিত মামলা হওয়া উচিত । প্রচার থেকে সরিয়ে গৃহবন্দি করে রাখা দরকার মমতা ব্যানার্জিকে ।’ চুপ করে বসে নেই নির্বাচন কমিশনও। কমিশনের তরফের এক বিবৃতিতে জানানো হয়েছে, আত্মরক্ষা ও সরকারি সম্পত্তি বাঁচাতে গুলিতে চালিয়েছে সিআইএসএফ । ঠিক কি ঘটেছিল কমিশনে ইতিমধ্যেই রিপোর্ট দিয়েছেন বিশেষ পুলিশ পর্যবেক্ষক বিবেক দুবে । সেই রিপোর্টে উল্লেখ, বাহিনীর হাত থেকে অস্ত্র কাড়তে এসেছিলেন স্থানীয় বাসিন্দারা । সেকারণেই গুলি চালাতে বাধ্য হন তারা ।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে