বোলপুরের কর্মী সভা থেকে করোনা টিকা নিয়ে কেন্দ্রকে তোপ দাগার পাশাপাশি কেষ্টর উপর নজরদারী, দলীয় কর্মীদের গ্রেফতার সহ সিআরপিএফের গুলি চালানো নিয়ে সরব মমতা ।

0
4

বোলপুরে দলীয় কর্মীসভা থেকে এদিন মুখ্যমন্ত্রী বলেন, বর্তমানে যেখানে করোনায় জর্জরিত দেশ সেখানে কেন্দ্রীয় সরকার সমস্ত কিছু নিজের হাতে রেখেছে । তৃণমূল সরকার করোনা নিয়ে কাজ করছে কিন্তু কেন্দ্রীয় সরকার আর নির্বাচন কমিশন শুধু তৃণমূল কংগ্রেসকে কীভাবে শেষ করা যায় সেই চক্রান্ত করছে । তিনি আরও বলেন, কেন্দ্রীয় সরকারের কাছে আবেদন করব সবাইকে বিনামূল্যে ভ্যাকসিন দিতে । পাশাপাশি তার দাবী প্রধানমন্ত্রীর রিলিফ ফান্ডে লক্ষ লক্ষ কোটি টাকা আছে, সেখান থেকে ভ্যাকসিনের জন্য ২০ হাজার কোটি টাকা দিলে কোন ক্ষতি হবে না । এদিনও তিনি অভিযোগ করেন কেন্দ্রীয় সরকারের গাফিলতির জন্য দেশের করোনা পরিস্থিতি ভয়াবহ আকার ধারণ করেছে । অপরদিকে এদিন নির্বাচন কমিশনকেও তোপ দেগে মমতা বলেন, নির্বাচন কমিশনের ভূমিকায় তারা প্রথম থেকেই কোনও বিচার পাচ্ছেন না । একমাত্র বিজেপি যা বলছে, তাই করা হচ্ছে । নির্বাচন কমিশন যদি ৮ দফায় নির্বাচন না করত, তাহলে এই পরিস্থিতি হত না । এমনকি কার নির্দেশে কী হচ্ছে, সেই সব খবর তার কাছে আছে বলেও তিনি এদিন চাঞ্চল্যকর দাবী করে বলেন, ভোটে তৃণমূলের সক্রিয় কর্মীরা যাতে কাজ করতে না পারেন, সেজন্য তাদের ভোটের আগের দিন থেকে গ্রেফতারির নির্দেশ দেওয়া হয়েছে । কমিশনের পর্যবেক্ষকদের হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাট তার হাতে আছে । পাশাপাশি এদিন আবারও সিআরপিএফের গুলি চালানোর প্রসঙ্গ তুলে বলেন, “সিআরপিএফ-কে গুলি চালাতে নির্দেশ দিচ্ছে কেন্দ্র ।” অপরদিকে এদিন ২০১৬ সালে বিধানসভা ভোটের দিন অনুব্রত মণ্ডলকে (কেষ্টকে) নির্বাচন কমিশনের নজরবন্দি করার প্রসঙ্গ তুলে বলেন, প্রতিবার ইলেকশনের আগে কেষ্টকে নজরবন্দি করে রেখে দিচ্ছে । নজরবন্দি করা একটা ক্রাইম । এরপরই কেষ্টকে আদালতে যাওয়ার পরামর্শ দিয়ে বলেন, “এবার করলে কেষ্ট তুমি কোর্টে যাবে, প্রোটেকশন নেবে । এভাবে ইচ্ছামতো নজরবন্দি করে রাখা যায় না ।”

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে