কয়লাকাণ্ডে গ্রেফতার বাঁকুড়া থানার আইসি অশোক মিশ্র

0
81

গত ২৭ মার্চ থেকে পশ্চিমবঙ্গে শুরু হয়ে গিয়েছে বিধানসভার ভোট । আগামী মঙ্গলবার ৬ এপ্রিল রাজ্যে তৃতীয় দফার ভোট । আর ভোট শুরু হওয়ার আগে থেকেই আবারও শুরু হয়ে গিয়েছে কয়লা, গরু, সারদা, মেট্রো ডেয়ারি প্রভৃতি মামলা নিয়ে সিবিআই ও ইডির তৎপরতা । তৃতীয় দফার ভোটের আগেই রবিবার কয়লাকাণ্ডে বাঁকুড়া থানার আইসি অশোক মিশ্রকে গ্রেফতার করল ইডি । ইডির সূত্রে জানা গেছে কয়লা ও গরু পাচারকাণ্ডে অভিযুক্ত যুব তৃণমূল নেতা বিনয় মিশ্রর আত্মীয় হন অশোক মিশ্র । এর আগে অশোক মিশ্রকে গরু পাচারকাণ্ডেও জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে । এমনকি ধৃত পুলিশ অফিসারের যোগসাজশেই গরু ও কয়লা পাচারের টাকা পুলিশ আধিকারিক ও প্রভাবশালী ব্যাক্তিদের কাছে পৌঁছত । পাচারকারীদের সুরক্ষা দেওয়ার ব্যাপারটি দেখতেন ধৃত এই পুলিশ অফিসার । পাশাপাশি জানা গেছে দীর্ঘ ৪ মাস ধরে লালা ওরফে অনুপ মাঝির হদিশ পাচ্ছিল না সিবিআই । কিন্তু সুপ্রিম কোর্ট থেকে রক্ষাকবচ মিলতেই তার নাটকীয় ভাবে আত্মপ্রকাশ হয় । এমনকি যে সিবিআই তাকে এতদিন হন্যে হয়েও খুঁজে পাচ্ছিল না সেই সিবিআই দফতরে সটান হাজির হয় কয়লা পাচারকাণ্ডের অন্যতম অভিযুক্ত অনুপ মাজি ওরফে লালা । কিন্তু তাকে সাড়ে ৭ ঘণ্টা জিজ্ঞাসাবাদে পরও সন্তুষ্ট হতে পারে নি সিবিআই । আগামীকাল আবারও লালাকে তলব করেছে সিবিআই । কয়লাকাণ্ডে এর আগে সিবিআইয়ের নজরে আসেন আসানসোলের প্রাক্তন পুলিশ কমিশনার লক্ষ্মীনারায়ণ মিনা । সিবিআই সূত্রে জানা গেছে লক্ষীনারায়ণ মিনা আসানসোল-দুর্গাপুরের পুলিশ কমিশনার থাকাকালীনই অবৈধ কয়লা খনি থেকে বিপুল পরিমাণ কয়লা তোলা হয় । অন্যদিকে সিবিআইয়ের নোটিস পেয়েই তাদের দফতরে গিয়ে দেখা করেন আসানসোল-দুর্গাপুরের প্রাক্তন পুলিশ কমিশনার তথা কলকাতা পুলিশের অ্যাডিশনাল সিপি লক্ষ্মীনারায়ণ মিনা ।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে