পুনর্নির্বাচনের সকালে শীতলকুচির ১২৬ নম্বর বুথে বিজেপি প্রার্থীর গাড়ি ঘিরে অশান্তি ।

0
11

গত ১০ এপ্রিল চতুর্থ দফায় শীতলকুচি বিধানসভার জোড়াপাটকির আমতলা মাধ্যমিক শিক্ষা কেন্দ্রে ১২৬ নম্বর বুথে সিআইএসএফ-এর গুলিতে মৃত্যু হয় সমিউল মিয়াঁ, মণিরুল মিয়াঁ, হামিদুল মিয়াঁ এবং নুর ইসলাম মিয়াঁ নামে ৪ গ্রামবাসীর । যার জেরে সেদিন ঐ বুথে বন্ধ করে দেওয়া হয় ভোট গ্রহণ । এরপরই এই ঘটনা নিয়ে শুরু হয় রাজনৈতিক তরজা । বর্তমানে সিআইডি এই ঘটনার তদন্ত করছে । বৃহস্পতিবার রাজ্যে শেষ তথা অষ্টম দফার নির্বাচনের দিনও এই বুথে পুণর্নির্বাচনের দিনও অশান্তি পিছু ছাড়লো না । এদিন  সকালে এখানে ভোট গ্রহণ শুরুর কিছুক্ষণের মধ্যেই এলাকায় উত্তেজনা ছড়ায় বিজেপি প্রার্থীর গাড়িকে ঘিরে । তৃণমূলের তরফে অভিযোগ করে বলা হয় দলীয় পতাকা লাগানো গাড়ি বুথের ২০০ মিটারের মধ্যে রেখে বিজেপি প্রার্থী বিধি ভঙ্গ করেছেন । অন্যদিকে এবিষয়ে বিজেপির তরফে জানানো হয় ভুলবশত গাড়ি নিয়ে ঢুকে পড়েছিলেন তাদের দলের প্রার্থী । এমনকি এই সাধারণ বিষয়টিকে নিয়ে তৃণমূল রাজনীতি করছে বলেও তারা অভিযোগ করেন । ঘটনা প্রসঙ্গে জানা গেছে, এদিন ১২৬ নম্বর বুথের ২০০ মিটারের মধ্যে বিজেপি প্রার্থী বরেনচন্দ্র বর্মনের গাড়ি ঢুকে পড়ে । এবিষয়ে এই কেন্দ্রের তৃণমূলের প্রার্থী পার্থপ্রতীম রায় বলেন, যেখানে বুথের ২০০ মিটারের মধ্যে কোন রাজনৈতিক পোস্টার বা ব্যানার থাকার কথা নয়, সেখানে বিজেপি প্রার্থীর গাড়ি রয়েছে । এরপরই এই বিষয়ে ঘটনাস্থলে মাথাভাঙা থানার আইসি-র সঙ্গে বাক-বিতণ্ডায় জড়িয়ে পড়েন পার্থপ্রতীম বাবু । তার অভিযোগ নির্বাচন কমিশন এখানে বিজেপি-র হয়ে তাবেদারি করছে । অপরদিকে তৃণমূলের তরফে তোলা অভিযোগ অস্বীকার করে বিজেপি প্রার্থী বরেনচন্দ্র বর্মন বলেন, তিনি এদিন যখন ঐ বুথে গিয়েছিলেন তখন ভুলবশত গাড়িটি সেখানে রাখা হলেও পরে তা সরিয়ে নেওয়া হয় । পাশাপাশি তার দাবী তৃণমূলের সমস্ত অভিযোগই ভিত্তিহীন ।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে