পুজোর আগেই সাড়ে ২৪ হাজার শিক্ষক নিয়োগ করা হবে। আজ নবান্নে সাংবাদিক বৈঠক করে একথা ঘোষণা করলেন মুখ্যমন্ত্রীর ।

0
8

মুখ্যমন্ত্রী জানান, ১৪ হাজার আপার প্রাইমারি শিক্ষক নিয়োগ করা হবে। প্রাথমিকে নিয়োগ করা হবে ১০ হাজার ৫০০ জনকে। সব মিলিয়ে পুজোর আগেই সাড়ে ২৪ হাজার শিক্ষক নিয়োগ করবে রাজ্য সরকার। পুজোর পর আরও সাড়ে ৭ হাজার শিক্ষক নিয়োগ করা হবে। এর পাশাপাশি তিনি পরিষ্কার জানিয়ে দেন, মেধার ভিত্তিতে স্কুলে শিক্ষক নিয়োগ করা হবে। কারও কাছে লবি করার প্রয়োজন নেই। আদালতে মামলা চলছিল বলে এতদিন নিয়োগ আটকে ছিল। প্রসঙ্গত, রাজ্যে শিক্ষক নিয়োগ নিয়ে এর আগে একাধিক বার রাজ্যকে একহাত নিয়েছে বিভিন্ন বিরোধী দল। ভোটপর্বে বিজেপি নেতা শুভেন্দু অধিকারী অভিযোগ করেছিলেন, তৃণমূল সরকার গত নয়-দশ বছরে কোনও শিক্ষক, পার্টটাইমার বা ভোকেশনাল টিচার নিয়োগ করতে পারেনি। বরং পার্শ্বশিক্ষকদের প্রাপ্য বেতন থেকে বঞ্চিত করা হয়েছে। তিনি আরও বলেছিলেন, অটলবিহারী বাজপেয়ীর জমানায় সর্বশিক্ষা অভিযান চালু হওয়ার পর পার্শ্বশিক্ষক পদ তৈরি হয়। প্রাথমিক পর্যায়ে পার্শ্বশিক্ষকদের জন্য কেন্দ্রীয় বেতন ১২-১৫ হাজার টাকা। হাইস্কুলে পার্শ্বশিক্ষকদের বেতন ২৫ হাজার টাকা। কিন্তু এই টাকা পার্শ্বশিক্ষকদের দেওয়া হচ্ছে না। কাটমানি খাওয়া হচ্ছে, টাকা সরানো হচ্ছে। সবাইকে যৎসামান্য বেতন দেওয়া হচ্ছে। সবমিলিয়ে তৃণমূল আমলে সর্বস্তরে অব্যবস্থার অভিযোগ করেন তিনি। যদিও বিশাল সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিয়ে তৃতীয় বারের জন্য ক্ষমতা দখল করেছে তৃণমূল। এর পর থেকেই একের পর এক ভোট প্রতিশ্রুতি পূরণের পদক্ষেপ নিচ্ছে তৃণমূল সরকার। আজ নতুন করে মোট ৩২ হাজার শিক্ষক নিয়োগের কথা ঘোষণা করে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, মোট ৩২ হাজার জন চাকরি পাবেন। এতে সুবিধা হবে। তবে শিক্ষক নিয়োগ নিয়ে যাতে কোনও অনিয়মের অভিযোগ না ওঠে তাই গোড়াতেই সতর্ক করে দেন মুখ্যমন্ত্রী। মেধার ভিত্তিতেই নিয়োগ করা হবে বলে স্পষ্ট ভাষায় জানিয়ে দেন তিনি।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে