অক্ষয় তৃতীয়ার সকালে মাহেশের ঐতিহাসিক জগন্নাথ দেবের চন্দননযাত্রার মধ্য দিয়ে শুরু হয়ে গেল রথযাত্রা উৎসব।

0
26

অক্ষয় তৃতীয়ার সকালে মাহেশের ঐতিহাসিক জগন্নাথ দেবের চন্দননযাত্রার মধ্য দিয়ে শুরু হয়ে গেল রথযাত্রা উৎসব। এদিন সকালে মাহেশের জগন্নাথ মন্দিরের মহাপ্রভুর সারা অঙ্গে চন্দন মাখিয়ে এই উৎসবের সূচনা করা হলো। বহু যুগ ধরে এই উৎসব পালিত হয়ে আসছে মাহেশের জগদ্বিখ্যাত জগন্নাথ মন্দিরে। এদিন সকালে এই উৎসব পালন করা হলো অনাড়ম্বরভাবে, মহামারী কোবিড বিধি মেনে। এ প্রসঙ্গে বলতে গিয়ে মাহেশ জগন্নাথ দেব ট্রাস্টিবোর্ডের সম্পাদক পিয়াল অধিকারী জানান আমাদের আজকের উৎসব থেকে শুরু সূচনা হয় রথযাত্রা উৎসব এর। জগন্নাথ মন্দিরে প্রতি বছর চারটি বিশেষ দিনে ভক্তরা জগন্নাথ দেবের পূজা অর্চনা মেতে ওঠেন। দিন গুলি হল অক্ষয় তৃতীয়া, ১ লা বৈশাখ , বিজয় দশমী, এবং কার্তিক মাসের প্রথম দিন।আজ হচ্ছে বৈশাখ মাসের শুক্ল তৃতীয়া অর্থাৎ অক্ষয় তৃতীয়া। আজকে থেকেই এই উৎসবের সূচনা হল । ২১ দিন ধরে প্রভু জগন্নাথ কে মাখানো হবে চন্দনের প্রলেপ। পিয়াল বাবু জানালেন কয়েক শত বছর আগে চন্দন যাত্রা উৎসবের সূচনা হয়েছিল। রাজা ইন্দ্রগনু কে প্রভু আদেশ দিয়েছিলেন এই চন্দন যাত্রা উৎসব আয়োজন করার। তারপর থেকে চলে আসছে আসছে এই উৎসব। আমরা জানি পুরীর রথযাত্রা ভারতবর্ষের দ্বিতীয় বৃহত্তম অনুষ্ঠিত হয় এই মাহেশ এ এই দীর্ঘ শতাব্দী পেরিয়ে আজও এই উৎসব অনুষ্ঠিত হচ্ছে এ বছর এই উৎসব ৬২৫ বছরে পড়বে। কিন্তু গত বছর থেকে যেভাবে করোনা মহামারী সারা দেশ জুড়ে ছড়িয়ে পড়েছে তার জন্য গত বছর মাহেশের রথযাত্রা অনুষ্ঠিত হয়নি, রথের চাকাও গড়ায়নি। জানিনা এবছর কি হবে আমরা ভগবানের কাছে প্রার্থনা করছি যে তিনি যেন এই মহামারী থেকে মানব সমাজকে মুক্ত করেন। তবে যাই হোক না কেন আমরা সমস্ত কিছু দেখে পরবর্তীকালে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে , এ বছর রথের চাকা পথে গড়াবে কিনা। সে বিষয়ে আমরা জনসাধারণকে পরবর্তীকালে জানিয়ে দেব।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে